Header Ads

Header ADS
বার্নাব্যু'তে এগিয়ে থাকবে কে?

অজয় মন্ডল

ক্লাব ফুটবলে হোম ম্যাচ, এওয়ে ম্যাচ বলে একটা কথা আছে। ঘরের মাঠে খেলা বলে হোম ম্যাচ এ তাই স্বাগতিকরাই কিছুটা এগিয়ে থাকে৷ তবে ম্যাচটা যখন "এল ক্লাসিকো", তখন এই হিসেব একদমই বেমানান। কারন এল ক্লাসিকোতে হোম, এওয়ে বলে কিছু নেই।

ইউয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের পর খুব সম্ভবত ইউরোপের সবচেয়ে 'হাই ভোল্টেজ' ম্যাচ 'এল ক্লাসিকো'। ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়েছেন, রঙ হারিয়েছে রিয়াল। কিন্তু এল ক্লাসিকোর আগে ঠিকই উত্তাপটা টের পাচ্ছে ফুটবলবিশ্ব। কোপা ডেল রে-র ফাইনালে যাওয়ার টিকেট নির্ধারণী হওয়ায় সেই উত্তাপ যেন বেড়ে দাঁড়িয়েছে কয়েক গুণ। ক্লাসিকো নিয়ে বাগযুদ্ধটা স্তিমিতই ছিল গত কয়েক ম্যাচে। লিওনেল মেসিকে ভয় পান না মন্তব্য করে সেই 'নিষ্ক্রিয় আগ্নেয়গিরি'কে যেন পুনর্জীবিত করেছেন ভিনিসিয়াস জুনিয়র। সেমিফাইনাল দ্বিতীয় লেগটা নিজেদের মাঠেই চাইবে যেকোনো দল। কিন্তু প্রতিপক্ষ যখন বার্সা, তখন বার্নাব্যুতেই 'ভয়' রিয়ালের। বার্নাব্যুতে লা লিগার শেষ ৩ 'ক্লাসিকোতে'ই যে মেসিদের কাছে হার মানতে হয়েছে তাদের!
ভিনিসিয়াসকে সমর্থন জানিয়ে তাকে রীতিমত প্রশংসায় সিক্ত করেছেন সোলারি, 'এত অল্প বয়সে রিয়ালের জার্সিতে নিজেকে প্রমাণ করা সহজ নয় কোনোভাবেই। ভিনি দুর্দান্ত খেলেছে পুরোটা মৌসুম। ড্রেসিংরুমে 'সিনিয়র'দের (রামোস, মদ্রিচ) সম্মানটুকু আদায় করে নিয়েছে সে। আক্রমণভাগে করিমের (বেনজেমা) সাথে তার বোঝাপড়াটা অল্প সময়েই দুর্দান্ত হয়েছে। কিন্তু মাটিতেই পা রাখছে সে। এটাই ওর সবচেয়ে শক্তিশালী দিক।'

বার্নাব্যু রিয়ালের 'হোম' গ্রাউন্ড হলেও এই মাঠে শেষ ৩ ম্যাচে জয় পেয়েছে বার্সাই। কার্লো আনচেলত্তির অধীনে সেই ২০১৪-১৫ মৌসুমের পর বার্নাব্যুতে বার্সাকে হারাতে পারেনি রিয়াল। দ্বিতীয় লেগের আগে যা নি:সন্দেহে বার্সার অন্যতম 'প্লাস পয়েন্ট' হওয়া উচিত। কিন্তু এমনটা মানতে নারাজ কাতালান কোচ এর্নেস্তো ভালভার্দে, 'আগে কী হয়েছে না হয়েছে, সেসব আজকের ম্যাচের আগে ভাবতে চাই না। আমাদের আজ গোল করতেই হবে। আক্ষরিক অর্থেই 'নক আউট' ম্যাচে নামছি আমরা। সামান্য পা হড়কালেই গত কয়েক মাসের পরিশ্রম অর্থহীন হয়ে পড়বে। নিজেদের মাঠ এবং সমর্থকদের নিয়ে রিয়ালও তেতে থাকবে। নিজেদের সেরাটা দেওয়া ছাড়া উপায় নেই আমাদের।'

মৌসুমের অন্যতম বড় ম্যাচের আগে ইনজুরি নিয়ে খুব একটা দুশ্চিন্তায় নেই কোনও দলই। পিঠের ব্যথা সেরে উঠলেও রিয়ালের হয়ে থাকছেন না ইস্কো। প্রথম লেগে হ্যামস্ট্রিং ইনজুরিতে পড়ায় থাকছেন না মার্কোস ইয়োরেন্তেও। পূর্ণ অনুশীলনে ফেরায় বার্সার স্কোয়াডে ফিরেছেন গোলরক্ষক জাস্পার সিলিসেন এবং মিডফিল্ডার আর্থার মেলো। গত সপ্তাহে সেভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে মূল একাদশে ফিরেছিলেন স্যামুয়েল উমতিতিও।

সব মিলিয়ে বলা যায় এটা একটা আনপ্রেডিক্টেবল ম্যাচ হতে চলেছে। যেখানে যেকোনো কিছুই হতে পারে

No comments

Theme images by luoman. Powered by Blogger.