Header Ads

Header ADS
বর্তমান বিশ্বে সেরা ১০ ফ্রি-কিকার কারা?





ফ্রী-কিক থেকে বলটা টপ কর্নার দিয়ে জালে জড়িয়ে গেলো, এই দৃশ্য দেখা মানেই চোখের প্রশান্তি। খুজলে হয়তো খুব কম লোকই পাওয়া যাবে যাদের কাছে এই দৃশ্য ভাল লাগবে না। দেখতে যতই আনন্দদায়ক হোক না কেন ফ্রী-কিক এ গোল করা কিন্তু সহজ ব্যাপার না। অনেকের মতেই ফ্রী-কিকে গোল করা ফুটবলের অন্যতম কঠিন কাজগুলোর একটি। 

কিন্তু সবসময়ই এমন কিছু লোক থাকে যাদের কাছে এটা ডালভাতের মত। যার কারনে তাদের এই কাজটিতে সেরা মানা হয়। বর্তমানেও এমন কিছু ফুটবলার আছে যাদের এ ব্যাপারে সেরা মানতেই হবে। ফুটবল ভিত্তিক ওয়েবসাইট "অল ফুটবল" বর্তমান সময়ের সেরা দশজন ফ্রী-কিক স্পেশালিষ্ট এর একটি তালিকা প্রকাশ করেছে।

 ১০.হুয়ান মাতা-ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

স্পেশাল মাতা হয়তো বিশ্বের সেরা ফ্রী-কিক টেকার নন। তবে পরিসংখ্যান কখনও মিথ্যা বলে না। এই জাদুকরি মিডফিল্ড মায়েস্ত্রো একজন সত্যিকারের সেট পিস মাস্টার। ২০১৫ সালের জানুয়ারিতে প্রকাশিত এক জরিপ অনুযায়ী, ২০০১-০২ সাল থেকে প্রিমিয়ার লীগে সেট পিসে কমপক্ষে ৫ গোল করেছে এমন খেলোয়াড়দের মধ্যে হুয়ান মাতার কনভার্সন রেট সবার চেয়ে বেশি। প্রায় প্রতি পাঁচটি শটের একটিতে সে গোল করতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু এটা দুঃখজনক যে সে রেগুলার ফ্রী-কিক টেকার নয়।

৯.ডেভিড আলবা-বায়ার্ন মিউনিখ

একটি তারকা ভর্তি দলে রেগুলার ফ্রী-কিক টেকার হতে তাকে সত্যিই খুব কষ্ট করতে হয়েছে। বায়ার্ন এর মত দলে মাত্র ২২ বছর বয়সেই সে রেগুলার ফ্রী-কিক নেয়। এখান থেকেই বোঝা যায় সে এই কাজে কতটা পারদর্শী। অস্ট্রিয়ান এই খেলোয়াড় চলতি মৌসুমে বায়ার্নের হয়ে দুটি গোল করেছে। দুটি গোলই এসেছে ফ্রী-কিক থেকে।

৮. মেম্ফিস ডিপেই-অলিম্পিক মার্শেই

ডাচ এই তরুন খেলোয়াড় পিএসভির হয়ে দারুন মৌসুম কাটানোর পরে মার্শেই এর হয়েও আছেন ছন্দে৷ সেট পিসে মানবদেয়াল ও গোলরক্ষক কে কিভাবে ফাকি দিতে হয় তা সে খুব ভালই জানে।

৭. জেমস রদ্রিগেজ-বায়ার্ন মিউনিখ

কলম্বিয়ান এই তারকা ২০১৪ সালের ফিফা ওয়ার্ল্ডকাপ এর গোল্ডেন বুট বিজেতা। বিশ্বকাপের পরে রিয়াল মাদ্রিদে এসে প্রতিনিয়তই ফর্মে ফেরার জন্য লড়াই করে গেছে। ফ্রী-কিকে তার যথেষ্ট দখল রয়েছে৷ বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে এখন দারুন সময় কাটাচ্ছেন জেমস। ২০১৮ এর জানুয়ারিতে ডি-বএক্স থেকে কয়েক ইঞ্চি দূর থেকে দুর্দান্ত এক গোল করেছিলেন। যা বুন্দেসলীগায় "গোল অফ দ্যা জানুয়ারি" নির্বাচিত হয়েছিল।

৬. মার্কোস অ্যালোন্সো-চেলসি

২০১৬ এর গ্রীষ্মে স্টামফোর্ড ব্রিজে আসার পর থেকে প্রতিনিয়ত সে ফ্রি-কিকে উন্নতি করছে। বর্তমানে সে চেলসির রেগুলার ফ্রী-কিক টেকার। তার বাম পায়ের জাদুতে চেলসির হয়ে বেশ কিছু ফ্রী -কিক গোলও করেছেন। ২০১৭-১৮ মৌসুমের শুরুতে টটেনহামের বিরুদ্ধে এক ম্যাচে ফ্রী-কিকে জোড়া গোল করেছিলেন। সেই ম্যাচে টটেনহামের গোলরক্ষকের দায়িত্বে ছিলেন প্রিমিয়ার লীগের সেরা গোলরক্ষকদের একজন "হুগো লরিস"।

৫. হাকান চালহানোগ্লু-এসি মিলান

তুরস্কের এই উঠতি তারকাকে ইউরোপের সবচেয়ে বেশি সম্ভাবনাময় মনে করা হয়। সেট পিসে তার দক্ষতা অসামান্য। তার বয়স কেবল মাত্র ২১। এবং সে ফ্রী-কিকের ক্ষেত্রে খুব দ্রুত উন্নতি করছে। এসি মিলানে সে এটাকিং মিডফিল্ডার হিসেবে খেলে।

৪. গ্যারেথ বেল-রিয়াল মাদ্রিদ

এটা স্পষ্ট যে রিয়াল মাদ্রিদে মূল তারকা খেলোয়াড় কে। এই ওয়েলস জাদুকর এই পরিস্থিতিতে কতটা দক্ষ তা আমরা ইতিমধ্যেই দেখেছি। যদিও মাদ্রিদে সে ফ্রী-কিক নেয়ার সুযোগ খুব কমই পেয়েছে, তবুও লস ব্লাঙ্কোস দের হয়ে তার বেশ কিছু ফ্রী-কিক গোল রয়েছে। তবে তার জাতীয় দলের হয়ে সে ফ্রী-কিকে তার যোগ্যতা প্রমাণ করেছে৷ এখন সময় বার্নাব্যুতে তার এই প্রতিভার সঠিক ব্যবহার করার।

৩. ফিলিপে কুতিনহো-বার্সেলোনা

এই মুহুর্তে বিশ্বের সেরা ফ্রী-কিক টেকারদের একজন ফিলিপে কুতিনহো। ব্রাজিলিয়ান এই তারকা খেলোয়াড় লিভারপুলে থাকাকালীন সময়ে রেগুলার ফ্রী-কিক নিতেন। লিভারপুলের হয়ে ফ্র-কিকে সর্বকালের সর্ব্বোচ্চ গোলদাতাদের তালিকায় তার আগে আছে শুধু স্টীভেন হেরার্ড ও হ্যারি রেডন্যাপ। লিভারপুলের হয়ে তার দুর্দান্ত পারফরম্যান্স এর কারনেই বার্সেলোনা তাকে কিনেছে।

২ .পাউলো দিবালা-জুভেন্টাস

ধরুন, ২০ গজ দূর থেকে আপনাকে ফ্রী-কিক নিতে বলা হল যেখানে গোলবারের সামনে ২০ জনের একটি মানবদেয়াল রয়েছে। সেখান থেকে কি গোল করতে পারবেন?
আপনি হয়তো পারবেন না। তবে পাউলো দিবালা পারবে। এক চ্যারিটি ম্যাচে এমনই এক আশ্চর্যজনক গোল করেছিলেন দিবালা।
তার নেয়া প্রতি পাঁচটি ফ্রী-কিকের একটি গোল হয়েছে। যা তাকে সময়ের সেরা ফ্রী-কিক স্পেশালিষ্টদের একজন বানিয়েছে।

১.লিওনেল মেসি-বার্সেলোনা

ক্যারিয়ারের প্রথম দিকে রেগুলার ফ্রী-কিক নিতেন না। জাভির সময় ফুরিয়ে আসার সাথে সাথে সে বার্সেলোনার হয়ে রেগুলার ফ্রী-কিক নিতে শুরু করেন। যত সময় যাচ্ছে ফ্রী-কিকে যেন মেসি ততই অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছেন। গত তিন ম্যাচেই ফ্রী-কিক থেকে তার গোল করা যেন সেই কথাই বলে। সাধারণত মেসি গতির সাথে বাকানো শটে গোলরক্ষক কে বোকা বানান। এখন পর্যন্ত ক্লাব ও জাতীয় দল মিলিয়ে ফ্রী-কিকে তার গোল সংখ্যা ৫১। দিন দিন ফ্রী-কিকে অপ্রতিরোধ্য হয়ে ওঠাই তাকে সময়ের সেরা ফ্রী-কিক স্পেশালিষ্ট বানিয়েছে।

No comments

Theme images by luoman. Powered by Blogger.