Header Ads

Header ADS
সুয়ারেজের জোড়া গোলে রিয়ালকে হারিয়ে ফাইনালে বার্সা। 

অজয় মন্ডল

সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগে রিয়াল মাদ্রিদকে ৩-০ তে হারিয়ে টানা ৬ষ্ঠ বারের মত কোপার ফাইনালে বার্সেলোনা। দ্বিতীয়ার্ধে সুয়ারেজের জোড়া গোল ও রাফায়েল ভারানের আত্বঘাতী গোল কাতালানদের ট্রেবল জেতার স্বপ্ন বাঁচিয়ে রেখেছে। একটি এওয়ে গোলের সুবিধা নিয়ে মাদ্রিদ আজ মাঠে নেমেছিল। তবে সহজ সুযোগগুলোও আজ গোলে পরিনত করতে ব্যর্থ হয়েছেন বেঞ্জেমা, ভিনিসিয়াসরা। এর মুল কারন বার্সার গোলরক্ষক মার্ক-আন্দ্রে-টের-স্টেগান।তিনি যেন আজ চীনের মহাপ্রাচীর হয়ে দাড়িয়েছিলেন রিয়ালের সামনে। এখন বার্সেলোনা টানা ৬ষ্ঠ বারের মত কোপার ফাইনালে খেলবে। যেখানে তাদের টানা পঞ্চম শিরোপার লড়াইয়ে প্রতিপক্ষ হবে ভ্যালেন্সিয়া অথবা রিয়াল বেতিস।

ম্যাচের শুরু থেকেই রিয়াল প্রেসিং করে খেলতে শুরু করে। প্রথম সুযোগও পায় রিয়াল। ২৩ মিনিটে বেঞ্জেমার ক্রস বার্সা ডিফেন্ডার লেংলেট এর পায়ে লাগলে বল ভিনিসিয়াস পেয়ে যায়। ক্লোজ রেঞ্জে ভালো শট করেছিলেন। তবে স্টেগান দুর্দান্ত সেভ এ তাকে গোল বঞ্চিত করে। ৩৬ মিনিটে আবারও দুর্দান্ত স্টেগান। প্রথমে ভিনিসিয়াস এর শট পিকের গায়ে লেগে ব্লক হলে বল আবারও ভিনিসিয়াস পেয়ে যান। পরে বেঞ্জেমার উদ্দেশ্যে ক্রস করেছিলেন। তবে বিপদ হবার আগেই স্টেগান লাফিয়ে উঠে বল ক্লিয়ার করেন। ৩৮ মিনিট আরও একটি সুযোগ পেয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান ইয়াংস্টার। তবে এবার মারেন বারের উপর দিয়ে। প্রথমার্ধে বার্সা তেমন সুযোগ তৈরী করতে পারেনি। দুইদলই প্রথমার্ধ শেষ করে কোনো গোল না করেই।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল করে বসে বার্সা। ৫০ মিনিটে উসমান দেম্বেলে বা দিক থেকে বল নিয়ে ঢুকে পরে ডিবক্সে। সময়মতো কাট-ব্যাক করে পাস দেন কিছুটা ফাকায় থাকা সুয়ারেজকে। তার দুর্দান্ত ফিনিশিং নাভাস কিছু বুঝে ওঠার আগেই গোলে পরিনত হয়। ৬২ মিনিটে একটি  অবিশ্বাস্য সেভ করেন স্টেগান। ভিনিসিয়াস এর ক্রসে দারুন হেড করেছিলেন করিম বেঞ্জেমা। আপাতদৃষ্টিতে সেটা গোলেই পরিনত হচ্ছিল। হঠাৎই বা দিকে ঝাপিয়ে পরে অবিশ্বস্যভাবে আবারও রিয়ালকে গোলবঞ্চিত করেন স্টেগান। ৬৯ মিনিটে আত্বঘাতী গোল করে রিয়ালের বিপদ বাড়ান রাফায়েল ভারানে। অবশ্য দেম্বেলের থ্রু পাসটি থেকে সুয়ারেজকে গোল বঞ্চিত করতে হলে নিজের জালে বল জড়ানো ছাড়া আর কিছুই করার ছিলো না ভারানের। এর মিনিট চারেক পরেই বলতে গেলে ম্যাচ থেকে পুরোপুরিভাবে ছিটকে যায় রিয়াল। ৭৩ মিনিটে ক্যাসেমিরো ডিবক্সে সুয়ারেজকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় বার্সা। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ভুল করেননি উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার। এই গোলের পর দুইটি এওয়ে গোলের সুবিধাসহ দুই লেগ মিলিয়ে ৪-১ এ এগিয়ে যায় বার্সা। রিয়ালের ফাইনালে যেতে হলে করতে হতো ৪ গোল। যা আদতে অসম্ভব ছিলো। বাকি সময়ে দুই দলই আরও কিছু সুযোগ পেলেও কেউ গোল করতে পারেনি।

 এই ম্যাচ এ বার্সার জয়ের পেছনে সুয়ারেজ ছাড়াও স্টেগানের বড় অবদান রয়েছে। প্রথমার্ধে আদতে বার্সাকে ম্যাচে টিকিয়ে রেখেছেন এই স্টেগানই। প্রথমার্ধে রিয়াল গোল পেয়ে গেলে হয়ত ম্যাচের ফলাফল অন্যরকমও হতে পারত। তা হয়নি শুধুমাত্র স্টেগানের অতিমানবীয় পার্ফমেন্সের কারনে। এজন্য বার্সা সমর্থকেরা তাকে একটা ধন্যবাদ দিতেই পারে।

No comments

Theme images by luoman. Powered by Blogger.